Digital Marketing,  Uncategorized

Keyword Research

আমরা যারা ওয়েব-সাইট নিয়ে কাজ করি, মোটামুটি সবাই SEO সম্পের্কে জানি বা নাম সুনেছি , SEO এর সবচাইতে গুরুপ্তর্পূণ first of all বিষয় হলো কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ।

By the way আমরা যারা ওর্গানিক ভাবে নিজের ওয়েবসাইট টা রেংকিং বাড়াতে চাই তাদের সবার-ই এই কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ বিষয় জানা উচিৎ।

May be কী-ওর্য়্যাড হলো আপনাকে আপনার ওয়েব-সাইটের জন্য এমন একটি নাম, শব্দ বা বাক্য ব্যবহার করতে হবে যেটা দিয়ে কোন বৃক্তি যখন গুগলে র্সাচ দিবে ।

তখন আপনার সাইটটা সবার উপরে দেখাবে।

কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ হলো আমাদের বিভিন্ন উপায়ে সেই নাম , শব্দ বা বাক্যটাকে খুজে বের করা।

তাই এটা আমার সাইটকে গুগল সহজে খুজে পেতে বিশেষ ভুমিকা নিবে।

কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ এর কয়েকটি গুরুত্বর্পূণ বিষয়ঃ
  • আমরা যে কী-ওর্য়্যাড টি ব্যবহার করতে চাচ্ছি সেটা অবশ্যই আমাদের পোস্টের ধরণ অনুযায়ী হতে হবে বা নিশ অনুযায়ী হতে হবে।
  • আমরা যে কী-ওর্য়্যাড টি ব্যাবহার করতে চাচ্ছি সেটা অবশ্যই ২০০ ওর্য়্যাড এর মধ্যে হতে হবে।
  • আমরা বেশি কমপিটিশন যুক্ত কী-ওর্য়্যাড ব্যাবহার করবো না , হতে পারে যে এটা সবচাইতে বেশি র্সাচ হয় তবে এর কমপিটিশন যদি ১০০০০০ হয় তাহলে আমাদের পেজ দেখাবে ধরুন ১00000 জনের পিছনে।
কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ এর স্টেপ সমুহঃ
মাইনস্টোন: আমরা যখন কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ নিয়ে কাজ করবো প্রথমে আমরা  আামাদের মাথাতে যে সকল শব্দ সমুহ আসে বা কী-ওর্য়্যাড এর কথা মনে আসে আমরা সেটা নিয়ে শুরু করবো,

আমরা সেই কী-ওর্য়্যাড গুলো কোথাও নোট করে রাখবো।

বন্ধুদের সাহায্য নেওয়া: আমার যখন কোন কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ নিয়ে কাজ করবো তখন আমরা আমাদের বন্ধুদের সাহায্য নিতে পারি ।

কেনোনা আমাদের মাথাতে সবকিছু থাকে না আর বেশি মাথা মানে বেশি কী-ওর্য়্যাড

আমরা আমাদের বন্ধু বা পরিচিতদের থেকে যে কী-ওর্য়্যাড গুলো পবো সেগুলো নিয়ে নোট করে রাখবো।

গুগোল র্সাচ থেকে কী-ওর্য়্যাড নেওয়া: আমরা যখন গুগলে কোন বিষয় নিয়ে র্সাচ করি তখন গুগল আমাদের সেই ধরনের অনেক গুলো ট্রপিক্স সামনে এনে দেই এখান থেকে আমরা কী-ওর্য়্যাড নিতে পারি।

যেমন আমি এখানে gardenin দিয়ে র্সাচ দিয়েছি  আমাকে অনেক গুলো কী-ওর্য়্যাড সাজেস্ট করেছে।

গুগোল রিলেটেড র্সাচ: আমরা যখন গুগোলে কোন বিষয় নিয়ে র্সাচ দিয়ে থাকি তখন গুগোল তার ফলাফল আমাদের কাছে প্রর্দশন করে।

এছারা আমাদের কে র্সাচ বারের সবার নিচে গুগোল রিলেটেড র্সাচ নামে একটি বার দেখায় যেখানে আমার যা দিয়ে র্সাচ দেই সেই ধরনের কথা লেখা থাকে সেটাকে বলা হয় গুগোল রিলেটেড র্সাচ।

আমরা এখান থেকে কী-ওর্য়্যাড নিতে পারি।

মাইনস্টোন র্সাচ: আমার যাারা নিজের মাথা থেকে যে কইটা কী-ওর্য়্যাড এসেছে সেগুলো এবং আমাদের পরিচিতদের থেকে যে কইটা কী-ওর্য়্যাড পেয়েছি,

সবগুলো দিয়ে গুগলে র্সাচ করবো এরমধ্যে দেখবো কোন কী-ওর্য়্যাড টির কমপিটিশন কম, তারপর আমরা সেটা নিয়ে কাজ শুরু করবো।

এক্সটেনশন ব্যাবহার: আমরা ফ্রি তে ক্রোম ব্রাউজারের একটি এক্সটেনশন ব্যবহার করে কী-ওর্য়্যাড পেতে পরি।

এক্সটেনশন টার নাম হলো keyword Everywhere

গুগল প্লানার: গুগল প্লানার একটি গুগলের সর্ভিস যেখান থেকে আমরা কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ করতে পারি ।

এখান থেকে আমরা আমাদের কী-ওর্য়্যাড র্সাচ ভেলু কেমন , তার কমপিটিশন কেমন দেখতে পারি।

কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ ফ্রি টুলস: আমার কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ এর জন্য কিছু  ফ্রি টুলস ব্যাবহার করতে পারি, তবে এই সকল টুলস থেকে আমরা কিছু পরিমাণ ধারণা পেতে পারি সমপূর্ণ ধারনা , নাও পেতে পারি এর জন্য আমাদের পেইড টুলস ব্যাবহার করতে হবে।

কিছু ফ্রি টুলস এর নাম: (Ubersuggest.io, Keyword Shitter)।

কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ পেইড টুলস: আমার এখান থেকে সব ধরনের সুবিধা পেতে পারি।

বলতে পারেন যে আমরা শুধু মাত্র আমাদের মাথাতে যে কী-ওর্য়্যাড গুলো এসেছে সেগুলো নিয়ে র্সাচ দিলে আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে পরবো তবে এই টুলস গুলোর দাম ও অনেক ।

কিছু পেইড টুলস এর নাম: (Semrush.com, Spyfu)

সবশেষে বলতে চাই আপনি যদি সঠিক কী-ওর্য়্যাড খুজে পান তাহলে আপনার সাইটে রেংকিং করতে ১ সপ্তাহ লাগবে না।

আর এর জন্য আপনাকে সময় দিতে হবে , একটি কী-ওর্য়্যাড রির্সাচ এর জন্য আপনার ১ মাস সময় ও লাগতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *